প্রধান মেনু

রায়পুরে টাকার জন্য সিজারের রোগীকে ৪ দিন যাবত হাসপাতালে আটক

,রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধিঃ এখন চিকিৎসার নামে চলছে হাসপাতালের রমরমা ব্যবসা। চিকিৎসাকে গুরুত্ব না দিয়ে ব্যবসাকে প্রাধান্য দিচ্ছে হাসপাতাল মালিকগুলো। তবে এ দেশে কবে সঠিক ও মান সস্মত চিকিৎসা ব্যবস্থা চালু হবে এটাই এখন জনমনে প্রশ্ন-? । লক্ষ্মীপুরের রায়পুর মা ও শিশু হাসপাতালে মাত্র ৩ হাজার টাকার জন্য সেলিনা আক্তার নামের এক সিজারের রোগীকে ৪ দিন যাবত আটক করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে । জানা যায়, মধুপুর এলাকার গরীব প্রসূতি রোগী সেলিনা এক দালালের মাধ্যমে ৯ দিন আগে রায়পুর বাসষ্ট্যান্ড মা ও শিশু হাসপাতালে ভর্তি হয়।

প্রসব বেদনা উঠলে রোগীকে সিজার সিজার করা হয়, তবে ৪ দিন আগে রিলিজ হওয়ার কথা থাকলেও গরীব স্বামী দাবীকৃত প্রথমে ১৫ হাজার ও পরে ১২ হাজার টাকার মধ্যে ৯ হাজার টাকা যোগাড় করে আনে। কিন্তু বাকি ৩ হাজার টাকার জন্য তারা রিলিজ না দিয়ে রোগীকে সাধারন একটি রুমে গত ৪ দিন আটকে রাখে। তাদের দার্যকৃত ৩ হাজার টাকার জন্য রোগীর মা কানের দূল খুলে জমা রাখার প্রস্তাব দিলেও হাসপাতালের দায়িত্বশীলদের টনক নড়েনি।

সেলাই কাটার দিন বাকি টাকা দিবে এই মর্মে মুচলেকা দিবে বলার পরও তাদের কথায় কর্ণপাত করেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। এখননো টাকার অভাবে তারা রায়পুর মা ও শিশু হাসপাতালে জিম্মী হয়ে আছে বলে জানা গেছে। এ অবস্থায় তারা সংশ্লিষ্টদের সু-দৃষ্টি কামনা সহ অমানবিক এ ঘটনার আইনি সহায়তার দাবী করেন। এ দিকে রোগীর ভাই জাবেদ’র সাথে মুঠফোনে কথা হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে অন্য সুরে কথাা বলেন, তিনি বলেন বিষয়টি আমাদের সাথে সমাধান হয়ে গেছে। প্রসঙ্গ,অনলাইন পত্রিকায় রায়পুর মা ও শিশু হাসপাতালে টাকার জন্য রোগীকে আটক করা হয়েছে বলে দুটি নিউজ প্রকাশিত হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, আটকের বিষয়টি ভিত্তিহীন। তারা টাকা না দিয়ে রোগীকে হাসপাতালে রেখে চলে গেছে। ১৫ হাজার টাকার মধ্যে আমাদেরকে ৮ হাজার টাকা এবং ঔষদের ৪০০০ টাকা দিয়ে (২১ মে) রোগীকে রিলিজ করে নিয়ে গেছে।