প্রধান মেনু

মানসম্পন্ন ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী যন্ত্রপাতি ব্যবহার করার আহ্বান বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর

ঢাকা, ২৮ ভাদ্র (১২ সেপ্টেম্বর) : বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, গুণগত মানসম্পন্ন ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার করতে গ্রাহকদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে। অনুমোদিত লোডের অতিরিক্ত বিদ্যুৎ ব্যবহার পরিহার করা উচিত। বৈদ্যুতিক নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনা পরিহারকল্পে প্রয়োজনে বিদ্যুতের অফিসগুলোর সহায়তা নেয়া যেতে পারে।

প্রতিমন্ত্রী আজ ভার্চুয়ালি ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিঃ এর উদ্যোগে নড়াইলে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির এলাকায় স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটারের সুবিধাগুলো গ্রাহকদের অভিহিত করুন। স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার ব্যবহারকারী পরিবারের বাজেট অনুযায়ী বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন এবং মাসিক বিল পরিশোধ খুবই সহজসাধ্য। সরকার নির্ধারিত সময়েই নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দেবে। পর্যায়ক্রমে সারা দেশেই বিদ্যুতের তার ভূগর্ভস্থ করা হবে।

নড়াইলে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিঃ –এর বিদ্যুৎ গ্রাহক সংখ্যা ১৫ হাজার ৮০০টি, প্রাথমিকভাবে স্মার্ট প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করা হবে ৯ হাজার ৯৯৮টি। প্রি-পেমেন্ট মিটারিং পদ্ধতিতে মিটার ব্যাল্যান্স শেষ হয়ে গেলেও তাৎক্ষণিকভাবে মিটার হতে ১০০ টাকা পর্যন্ত ইমারজেন্সি ব্যাল্যান্স নেয়ার ব্যবস্থা থাকায় বিদ্যুৎ বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি, সরকারি ছুটির দিন এবং অফিস সময়ের পর (বিকাল ৪টা থেকে পরদিন সকাল ১০টা পর্যন্ত) মিটারের ব্যাল্যান্স শেষ হলেও মিটার বন্ধ হবে না। গ্রাহকগণ নিট বিদ্যুৎ বিলের ওপর ১ শতাংশ হারে রিবেট সুবিধা প্রাপ্ত হবেন। বিদ্যুৎ বিল বকেয়া হবে না, ফলে লাইন কাটার টেনশন থাকবে না এবং অতিরিক্ত ডিসি/আরসি ফি ও ৫ শতাংশ হারে বিলম্ব মাসুল প্রযোজ্য হবে না ।

প্রি-পেমেন্ট মিটারের মাধ্যমে নতুন সংযোগ প্রদানের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা জামানত গ্রহণ করা হবে না । গ্রাহক তার মিটারের বিদ্যুৎ ব্যবহার ও অবশিষ্ট ব্যলেন্স যেকোন সময় দেখতে পারবেন । প্রিপেইড মিটার স্থাপনের সময় গ্রাহকের নিকট থেকে কোন অর্থ আদায় করা হবে না, সকল বিদ্যুৎ বিতরণী সংস্থা ও কোম্পানিতে সিঙ্গেল ফেজ মিটারের মাসিক ভাড়া ৪০ টাকা হিসেবে বিদ্যুৎ বিলের সাথে সমন্বয় করা হবে।

নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা, বিদ্যুৎ সচিব ডঃ সুলতান আহমেদ ও ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিঃ –এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ শফিক উদ্দিন সংযুক্ত থেকে বক্তব্য রাখেন।